স্ত্রীকে রক্তদান করা যাবে কি?

শেয়ার করুন:

ধরুন আপনার স্ত্রী রক্তশূন্যতায় ভুগছে কিংবা সন্তান জন্মদানের আগে বা পরে প্রয়োজন হলো রক্তের। আপনি আপনার স্ত্রীকে অনেক ভালোবাসেন। রক্তের গ্রুপ মিলে যাওয়ায় বা একই হওয়ায় সিদ্ধান্ত নিলেন ❝আমিই আমার স্ত্রীকে রক্তদান করবো।❞
বাইরের কারো রক্ত না নিয়ে নিজেই রক্তদান করলেন।
এতে কি সমস্যা হতে পারে??

জ্বী, সমস্যা হতে পারে।

স্বামী যদি স্ত্রীকে ব্লাড দেয়, তাদের ব্লাডগ্রুপ যদি একই হয়ও, তাহলেও সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। স্বামীর রক্তের মধ্যে থাকা মাইনর এন্টিজেন স্ত্রীর রক্তে থেকে যেতে পারে, যা পরবর্তীতে স্ত্রীর দেহে ঐ এন্টিজেন এর বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করবে।
এই এন্টিবডি স্ত্রীর দেহে থেকে যাবে এবং সেটি পরবর্তীতে প্লাসেন্টা (গর্ভফুল) এর মাধ্যমে গর্ভস্থ ভ্রূণের মধ্যে স্থানান্তর হতে পারে, যা তার জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হবে।
কারণ পরবর্তীতে সেই ‘মাইনর এন্টিজেন’ এর বিরুদ্ধে তৈরি হওয়া “অ্যান্টিবডি” foreign particle (সহজ করে বললে বাইরের শত্রু) হিসেবে চিহ্নিত করে তা নষ্ট করে দিতে বা মেরে ফেলতে চাইবে!

এই এন্টিবডি একসময় থাকে না, দেহ থেকে বের হয়ে যায়। কিন্তু বাচ্চা জন্মের সময় সমস্যার সৃষ্টি করে। তাই গর্ভাবস্থায় স্বামীকে তার স্ত্রীর জন্য রক্তদান করতে নিষেধ করা হয়।
এবার নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন ডাক্তাররা কেন স্ত্রীর জন্য তার স্বামীর রক্ত নিতে চায় না।

ধরুন আপনার সন্তানসম্ভবা প্রিয়তমা স্ত্রীকে রক্তটা আপনিই দিলেন। আপনার মন-শরীরে নায়কোচিত একটা ভাব-প্রশান্তি চলে আসছে। মাতৃ জঠরে আপনার কলিজার টুকরা বাচ্চাটা বেড়ে উঠছে। এখন যদি আপনার দেয়া রক্তে উপস্থিত অন্য কোনো এন্টিজেনের বিরূদ্ধে আপনার স্ত্রীর শরীরে এন্টিবডি তৈরী হয়ে যায়, প্লাসেন্টা বা গর্ভফুল দিয়ে সেই এন্টিবডি বাচ্চার শরীরে যাবে এবং বাচ্চার লোহিত রক্ত কণিকা (RBC) ভাঙা শুরু করবে! দেখা যাবে বাচ্চা প্রসবের পর তার এক্সচেঞ্জ ট্রান্সফিউশন লাগছে! মানে বাচ্চার শরীরের পুরো ব্লাড চেঞ্জ করে ফেলতে হবে!
ভালোবাসার কী ভয়ংকর সমস্যা! এন্টিজেন-এন্টিবডি চক্করে আপনারই রক্ত আপনার নিজেরই শরীরের রক্তকে স্ত্রীর শরীরে বসে শত্রু হিসেবে ডিটেক্ট করছে!

প্রশ্নঃ তাহলে কি স্বামী স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ একই হলে সমস্যা?
উত্তরঃ না, স্বামী-স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ একই হলে সমস্যা নয়, একই গ্রুপ হওয়া সত্ত্বেও স্ত্রীকে রক্তদান করলে সমস্যা হতে পারে।
তাই নিজ স্ত্রীকে রক্তদান না করা উত্তম।

প্রশ্নঃ তবে কি স্বামী স্ত্রীর রক্তের গ্রুপ ভিন্ন হলে ভালো নাকি সমস্যা?
উত্তরঃ রক্তের গ্রুপ (Rh) ভিন্ন হলে সমস্যা হয়। কখন সমস্যা হয় বিস্তারিত Link থেকে পড়ে নিন।

তাই অন্যের স্ত্রীকে রক্তদান করুন। নিজের স্ত্রীর জন্য অন্য রক্তদাতা সন্ধান করুন।

নিজ নিকটাত্মীয়ের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন সম্পর্কে জানতে……

শুধুমাত্র স্বেচ্ছায় রক্তদাতাগণ রেজিস্ট্রেশন করবেন।

 

মোঃ তাসনিমুল বারী নবীন

– রক্তবন্ধু


শেয়ার করুন: