রক্তদান এতোটাই সহজ

শেয়ার করুন:

রক্তদান করাটা এতটাই সহজ যতটা সহজ সমুদ্র সৈকতে ঘন্টায় ৩০ টাকার বেঞ্চে শুয়ে বাতাস খেতে খেতে সমুদ্র দেখা

যারা রক্ত দিতে ভয় পান তাদের জন্য আমার বাকেট লিস্টে ছিলো এই আয়োজনটা।

“সমুদ্র সৈকতে বসে রক্তদান করা”

এটাই প্রথম না। এর আগে সিলেটে পাহাড়ের উপরে উঠে আমি রক্তদান করেছি। সঠিক পদ্ধতিতেই করেছি। উদ্দেশ্য, যারা ভয় পায় তাদের বোঝানো, কাজটা এভাবে ঘুরে বেড়াবার মতই সহজ।

আমার ১২ দিনে কুষ্টিয়া থেকে ৩৫০ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে কুয়াকাটা পৌছানো নিয়ে যারা হতবাগ, দেখেন একদিন বিশ্রাম নিয়েই আজ বিকেলে আমি রক্তদান করলাম এক প্রসূতি মায়ের জন্য।

আমার কিন্তু কিছুই হয়নি। এখন মাথার উপর আকাশ ভরা সূর্য তারা নিয়ে সমুদ্রের পাশে বসে এই পোস্ট লিখছি।

আর আমার রক্তে একটা নতুন মা আরো একটু সুন্দর করে বাঁচার সুযোগ পেলো। যে বাচ্চাটা আসবে সেও কিন্তু আমার কথা মনে রাখবে।

আমি ছোটখাটো কম বুদ্ধির মানুষ। রক্তদান নিয়ে এরচেয়ে সহজ ভাবে মানুষকে মোটিভেট করার পদ্ধতি আমার মাথায় আসেনি।

যারা রক্ত দিতে ভয় পান তারা ছবিটা আবার দেখেন। আমার সামনে বিশাল সমুদ্র। গায়ে কয়েকদিনের ময়লা কাপড়। আমার গামছাটার উপরই রক্তের ব্যাগটা রাখা।

আমার আনন্দটা ফিল করতে পারেন?

যদি পেরে থাকেন, রক্তদান করা আপনার পক্ষেই সম্ভব। কারন আপনি “মানুষ”

কৃতজ্ঞতা, কুয়াকাটা টুরিস্ট পুলিশ সহ সাথে যারা ছিলেন 🙂

#বি_করিম
কুয়াকাটা


শেয়ার করুন: