রক্তদাতা উপহার দিলেন দুধ, চিনি, সেমাই

শেয়ার করুন:

জীবন চৌধুরী, রক্তবন্ধুঃ রোগীটার দীর্ঘ‌দিন ধরে কিড‌নি সমস্যা। অ‌নেক গরীব মানুষ। আমার গ্রা‌মে বা‌ড়ি, সম্প‌র্কে চাচা হয়। কোন কাজ কর‌তে পা‌রেন না। চাচী গ্র‌া‌মের ভিত‌রে সন্ধ্যা বেলায় ছোট্ট একটা দোকান ক‌রেন যেখা‌নে বি‌ভিন্ন চপ বি‌ক্রি ক‌রে। তার প‌রিবা‌রে ছে‌লে সন্তান নাই। ২ টা মে‌য়ে, বি‌য়ে দি‌য়ে দি‌য়েছেন। আ‌মি জানতাম না ঐ চাচার কিড‌নি সমস্যা। হঠাৎ এক‌দিন গ্রা‌মের এক ছোট ভাই বল‌লো, ও নে‌গে‌টিভ রক্ত লাগ‌বে। যখন বিস্তা‌রিত চাইলাম, তখন জান‌তে পা‌রি ঐ চাচার জন্য লাগ‌বে আর আ‌গে না‌কি রক্ত কি‌নে দি‌তো বি‌ভিন্ন যায়গা থে‌কে। শোনার প্রায় ২ বছর হ‌য়ে গিয়েছে, তখন থে‌কে আমি ও আমার ছোট ভাই সহ ঐ চাচার জন্য ও নে‌গে‌টিভ রক্ত ম্যা‌নেজ ক‌রে দেই। ‌রোগী অ‌নেক গরীব হওয়ার কার‌নে রক্তদাতা‌দের আগেভাগেই সব বলে রা‌খি। কারণ, অনেক সময় যাতায়াত ভাড়া এবং রক্তদাতাকে কিছু খাওয়ানোর খর‌চের একটা ইস্যু থা‌কে অনেকের মাঝে। দিনাজপুর মে‌ডি‌কে‌লের সাম‌নে “মে‌ডিপ‌য়েন্ট” না‌মে এক ডায়াগন‌স্টিক সেন্টার আ‌ছে সেখা‌নে ঐ রোগীর জন্য ফ্রি ক্রস মে‌চিং ক‌রে দেয়। রক্তদাতা ম্যা‌নেজ হ‌লে ডো‌নেট করার সময় রি‌সিভ কর‌বে এমন কেউ থা‌কেনা, থাকার নেইও। রেয়ার একটা র‌ক্তের গ্রুপ যে কার‌ণে অ‌নেক সময় রক্তদাতার সু‌বিধামত রক্ত টানিয়ে রাখ‌তে হয়। বে‌শির ভাগ সম‌য়ে আমার ছোট ভাই সাজ্জাদ যায়, কখ‌নো যে‌তে না পার‌লে ঐ ডায়াগন‌স্টিক সেন্টা‌রে গিয়ে রোগীর নাম বল‌লেই রক্তদাতার থে‌কে রক্ত নি‌য়ে রেখে দেয়, আর যে‌দিন ডায়ালাই‌সিসের সি‌ডিউল থা‌কে সে‌দিন রোগী গে‌লেই রক্ত নি‌য়ে নি‌তে পা‌রে। এভাবেই চল‌ছি‌লো রক্ত দেয়া নেয়া।

ত‌বে এবা‌রের গল্পটা ‌ ছি‌লো একটু ভিন্ন। রক্তদাতা রক্তদান কর‌তে আস‌লো ঠি‌কই, কিন্তু কাউ‌কে না জা‌নি‌য়ে রোগীর প‌রিবা‌রের জন্য ঈদ উদযাপ‌নের কথা মাথায় রে‌খে ব্যা‌গে ক‌রে নি‌য়ে আস‌লো সেমাই, দুধ আর চি‌নি।

প‌রিবর্তন আস‌ছে।
সবাই‌ যে রক্তদান কর‌তে গে‌লে খাওয়া খরচ, যাতায়াত ভাড়া দাবী ক‌রে এমনটা না। ‌কেউ ‌কেউ আ‌ছে যারা দান ক‌রে খু‌শি থা‌কে। ২৯ এপ্রিল ২০২২ ইফতা‌রের প‌রে দিনাজপুর মে‌ডিপ‌য়ে‌ন্টে কিড‌নি সমস্যার রোগীর জন্য এক ব্যাগ ও নে‌গে‌টিভ রক্তদান ক‌রেন রক্তবন্ধু রা‌কিব রানা ভাই।

স্যালুট রক্তদাতা রাকিব রানা ভাই।


শেয়ার করুন: